শ্রীপুরে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদসভা (ভিডিও)

শ্রীপুর

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কটুক্তির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেল ৪টায় শ্রীপুর পৌরসভার মাওনা চৌরাস্তা উড়াল সেতুর নিচে এ কর্মসুচী পালিত হয়। গাজীপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ, শ্রীপুর উপজেলা যুবলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমিকলীগ, ছাত্রলীগ ও উপজেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের যৌথ আয়োজনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তির প্রতিবাদে গাজীপুর জেলা স্বেচ্ছা সেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন জর্জ বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে শ্রীপুর থানায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় অভিযুক্ত শ্রীপুর পৌরসভার চন্নাপাড়া গ্রামের হাছেন আলীর ছেলে আব্দুল মালেককে একমাত্র আসামী করা হয়। আব্দুল মালেক মাইটিভি ও দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার শ্রীপুর প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত আছেন।

মামলার বাদী ও গাজীপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন মৃধা জর্জের সভাপতিত্বে ও শ্রীপুর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রনির পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন শ্রীপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ নূরুন্নবী আকন্দ, শ্রীপুর উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আকন্দ, শ্রীপুর উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মনিরুজ্জামান জামান, শ্রীপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সফিকুর রহমান সফিক, শ্রীপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কামাল ফকির প্রমুখ। সভায় বক্তারা ৪৮ ঘন্টার মধ্যে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় দাবী জানান। অন্যথায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধসহ বৃহৎ কর্মসূচী পালনের ঘোষনা দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) আজাহারুল ইসলাম জানান, অভিযুক্তকে দ্রুত গ্রেপ্তার করতে পুলিশ তৎপর রয়েছে। বেশ কয়েকবার সম্ভাব্য স্থানগুলোতে অভিযান চালানো হয়েছে। তাকে গ্রেপ্তার করতে নাগরিকদের কাছে তথ্য চেয়ে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০ মে দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ফেসবুক পেইজ “হৃদয়ে বাংলাদেশ” নামক একটি আইডি থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শৈশব কালের একটি ছবিতে “ইনি কে হতে পারেন” প্রশ্ন ছোঁড়ে দেয়া হয়। ওই পোস্টের মন্তব্যে অভিযুক্ত আব্দুল মালেক উল্লেখ করেন “সারা বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ডায়নী”। এরপর থেকে দ্রুত মন্তব্যটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

Leave a Reply